• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৯ আশ্বিন ১৪২৬
প্রকাশিত: এপ্রিল ১২, ২০১৯, ১০:৩৪ এএম
সর্বশেষ আপডেট : এপ্রিল ১৬, ২০১৯, ০৯:৫৫ পিএম

কাপ্তাই প্রশান্তি পার্কে পর্যটকদের ঢল

রাঙ্গামাটি সংবাদদাতা
কাপ্তাই প্রশান্তি পার্কে পর্যটকদের ঢল
রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলার কাপ্তাই উপজেলার অধীনস্থ প্রশান্তি পার্ক- ফাইল ছবি

 

রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলার কাপ্তাই উপজেলার অধীনস্থ প্রশান্তি পার্কে পর্যটকদের ঢল। শিশু কিশোরসহ সকল বয়সীদের জন্য রয়েছে নানান রকমের বিনোদন ব্যবস্থা। পার্কটি জল ও স্থল দু’পথে যাতায়াতের ব্যবস্থা থাকায় প্রতি দিনই অসংখ্য পর্যটক আসা যাওয়া করছে। এটির অবস্থান কাপ্তাই উপজেলার বালুচরে (স্টিল ব্রীজ সংলগ্ন)।

প্রশান্তি পার্কে ছোট বড় সকলের জন্য রয়েছে পর্যাপ্ত পরিমানে ভ্রমণের সুবিধা। এছাড়াও রয়েছে নিরিবিলি পরিবেশে নিজস্ব কটেজ ও রিসোর্ট। আছে ভেজাল মুক্ত সুস্বাদু খাবার এবং কফি হাউজ। দূর-দূরান্ত থেকে ছুটে আসা পর্যটকেরা চাইলে নিরাপদে যত্রতত্র ভ্রমণ করতে পারবে। প্রশান্তি পার্কে যোগ হয়েছে নতুন নতুন রিসোর্ট ও বিনোদন স্পট।

 

 

এছাড়াও তিন ধরনের ভ্রমণ স্পট রয়েছে। মহিলাদের জন্য পৃথক টয়লেট ও পৃথক ভ্রমণের স্পট রয়েছে। শিশুরা চাইলে অবাধে ঘুরাঘুরি ও খেলাধুলা করতে পারবে। শিশু, কিশোর, বৃদ্ধ, যুবক ও মহিলারা আলাদা আলাদা ভাবে ভ্রমণের সুযোগ রয়েছে। পার্কটির কর্তৃপক্ষ সে ভাবে সাজিয়েছেন পর্যটন পার্কটি।

পার্কের মালিক ও নবনির্বাচিত কাপ্তাই উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো.নাসির উদ্দিন বলেন, পার্কটির মূল লক্ষ্য হলো পর্যটকদের সেবা প্রদান করা। বাণিজ্য করার টাগের্ট নিয়ে আমরা পর্যটন ব্যবসায় আসিনি। আসল টাগের্ট কাপ্তাইকে বাংলাদেশের মানচিত্রে তুলে ধরা। কাপ্তাই যে প্রাকৃতিক সম্পদে ভরপুর সেটা এই পার্কের মাধ্যমে মানুষ জানুক। পরিচিতি লাভ করাটাই আমাদের মূল উদ্দেশ্য। আমাদের পার্কে নদী পথে ও সড়ক পথে আসা যায়। যে কেউ চাইলে বাংলাদেশের সব জায়গা থেকে প্রশান্তি পার্কে আসতে পারবেন।

 

কাপ্তাই প্রশান্তি পার্কে পর্যটকের ঢল- ছবি: জাগরণ

প্রশান্তি পার্কের ম্যানেজার মো.মাসুদ তালুকদার বলেন, পার্কের সুনাম ও সৌন্দর্য রক্ষার্থে এবং পর্যটকদের বিনোদন দিতে যা যা প্রয়োজন তাই করছি। তবে পর্যটকরা যেন তাদের ভ্রমণে তৃপ্তি পায় তার জন্য প্রশান্তি পার্কের কর্তৃপক্ষ পার্কটিকে আধুনিক মানের সাজিয়েছে। রাঙ্গামাটিতে যে সব পার্ক ও পিকনিক স্পট রয়েছে তার চেয়ে প্রশান্তি পার্ক ব্যতিক্রম ধর্মী। এই পার্কে স্বল্প মূল্যে সব কিছু পাওয়া যায়।

চট্টগ্রাম লোহাগড়া থেকে আগত পর্যটক রুমানা বলেন, রাঙ্গামাটিতে আমরা বেশ কিছু পর্যটন স্পটে ভ্রমণ করেছি। কিন্তু সব দিকে দিয়ে অত্যন্ত ভাল লেগেছে প্রশান্তি পার্কে। এখানে ভ্রমণের চমৎকার জায়গা রয়েছে। সড়ক পথে আসা যায় এবং নৌ পথে আসা যায়। বিনোদনের জন্য এটি উপযুক্ত জায়গা বলে আমি মনে করি। তাই আমার কাছে অনেক ভাল লেগেছে। 

 

পর্যটকদের বিনোদন দিতে গানের আয়োজন- ছবি: জাগরণ

ঢাকা থেকে আগত পর্যটক শিমুল বলেন, ঢাকা থেকে সরাসরি প্রশান্তি পার্কে এলাম এটাই শান্তি। এছাড়া এখানে বসে কাপ্তাই লেকের দৃশ্য উপভোগ করা যায়। আবার প্রাকৃতিক দৃশ্য পাহাড় দেখা যায়। প্রশান্তি পার্কটি অনেক বড় তাই বেড়াতে অনেক ভাল লেগেছে। আর এখানকার পরিবেশ অনেক ভাল। বিশেষ করে পর্যটন এলাকায় সব কিছুর দাম একটু বেশি থাকে কিন্তু প্রশান্তি পার্ক এন্ড পিকনিক স্পটে এ ধরনের কিছুই দেখতে পেলাম না।

 

টিএফ


 

Islami Bank