• ঢাকা
  • রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৭ আশ্বিন ১৪২৬
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৯, ১১:৫৫ এএম
সর্বশেষ আপডেট : সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৯, ১১:৫৫ এএম

শেবাচিমে ডেঙ্গু জ্বরে আরো এক স্কুলছাত্রীর মৃত্যু

বরিশাল সংবাদদাতা
শেবাচিমে ডেঙ্গু জ্বরে আরো এক স্কুলছাত্রীর মৃত্যু

বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত সুরাইয়া আক্তার নামের আরো এক স্কুলছাত্রীর মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার (১২ সেপ্টেম্বর) সকাল ৭টায় তার মৃত্যু হয়। 

মৃত সুরাইয়া (১৪) বরগুনা জেলার পাথরঘাটা উপজেলার পদ্মা গ্রামের বাসিন্দা বাদল মুন্সীর মেয়ে ও হাড়িচানা আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেনীর ছাত্রী ছিলো।

গত ২৪ ঘণ্টায় এ নিয়ে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে দু’জনের মৃত্যু হলো শেবাচিম হাসপাতালে। এর আগে বুধবার দুপুরে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত বরিশালের মুলাদী উপজেলার সদর ইউনিয়নের মধ্য চরলক্ষীপুর গ্রামের বাসিন্দা বাবুল আহমেদ হাওলাদারের ছেলে ফরহাদ হোসেন জিহাদ (১৪) এর মৃত্যু হয়। সে স্থানীয় চর লক্ষীপুর আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণীর ছাত্র ছিল। 

সুরাইয়ার পিতা বাদল মুন্সী জানান, গত ৬ সেপ্টেম্বর বাড়িতে বসেই সুরাইয়া জ্বরে আক্রান্ত হয় সুরাইয়া। এজন্য তাকে পাথারঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে রক্ষা পরীক্ষা করে ডেঙ্গু জ্বরের বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যায়। পরে সুরাইয়াকে চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এখানে তাকে দুই ব্যাগ রক্ত দেয়াও হয়েছিলো। কিন্তু চিকিৎসকদের সকল প্রচেষ্টা ব্যর্থ করে মৃত্যু কোলে ঢলে পড়ে সুরাইয়া।

হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক ডা. অসিৎ ভূষন দাস জানান, গত ১০ সেপ্টেম্বর রাত ৮টায় ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত সুরাইয়া বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ডেঙ্গু ওয়ার্ডে ভর্তি হয়। সুরাইয়ার শরীরের হিমোগ্লোবিন আশঙ্কাজনকভাবে কমে যায়। এজন্য দু’ব্যাগ রক্তও দেয়া হয়। কিন্তু চিকিৎসকদের সকল প্রচেষ্টা ব্যর্থ করে সুরাইয়া মৃত্যুবরণ করে। 

অপরদিকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ ( শেবাচিম) হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. মোহাম্মদ আব্দুল রাজ্জাক হোসেন বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় (বুধবার সকাল ১০টা থেকে বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা পর্যন্ত) এ হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ১৯ জন। এছাড়া ওই ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন ৩৩ জন। বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছে ৯৯ জন। এর মধ্যে পুরুষ ৩৯ জন, মহিলা ৩৪ ও শিশু ২৬ জন।

এছাড়া গত ১৬ জুলাই থেকে এ পর্যন্ত বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ২ হাজার ১৭০ জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে বিদায় নিয়েছেন ২০৬৩ জন। এছাড়া চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন মোট ৮ জন।

কেএসটি

আরও পড়ুন

Islami Bank