• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ০২ জুলাই, ২০২০, ১৮ আষাঢ় ১৪২৭
প্রকাশিত: মে ১১, ২০২০, ০৮:৩৪ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মে ১১, ২০২০, ০৮:৩৪ পিএম

‘অনুমোদন পায়নি গণস্বাস্থ্যের কিট, এ অভিযোগ অপ্রত্যাশিত’

জাগরণ প্রতিবেদক
‘অনুমোদন পায়নি গণস্বাস্থ্যের কিট, এ অভিযোগ অপ্রত্যাশিত’
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর কনক কান্তি বড়ুয়া

আমলাতান্ত্রিক জটিলতায় আটকে আছে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের আবিষ্কৃত কিটের অনুমোদন। এমনটা দাবি করেছেন কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। চূড়ান্ত অনুমোদন না দেয়া পর্যন্ত অন্তত সাময়িক সনদপত্র দেয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।

সোমবার (৯ মে) বিকেলে ধানমন্ডিতে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন জাফরুল্লাহ।

প্রক্রিয়াধীন একটি বিষয় নিয়ে এ ধরনের মন্তব্য অপ্রত্যাশিত বলে জানিয়েছে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়।

করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) আক্রান্তদের পরীক্ষার জন্য গত ১৭ মার্চ কিট উদ্ভাবনের ঘোষণা দেয় গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র। টেস্ট কিটগুলো কার্যকর দাবি করা হলেও উদ্ভাবনের পর প্রায় দু’মাসেও এখনও পরীক্ষার জন্য অনুমতি মেলেনি বলে সোমবার (১১ মে) সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রধান ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

এর ফলে দেশে করোনা আক্রান্তদের শনাক্ত করার কার্যক্রম ক্রমেই জটিল হচ্ছে দাবি করে দ্রুত এটি পরীক্ষার অনুমতি দিতে সরকারের প্রতি আহবান জানান গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র প্রধান।

আমরা দাবি করছি এই কিট কার্যকর। এটা এখনও সরকারের অনুমোদন পর্যন্ত পৌঁছাতে পারিনি। কিট আছে, তাদের নেয়ার যে চিঠি সেটা এখনও পাই নি। বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলরের কাছে আছে, তিনি চূড়ান্ত অনুমোদন দিলে আমরা কমিটিকে দেব। তবে যতদিন এই অনুমোদন না দেয়, ততদিন একটি সাময়িক সনদপত্র দেন।

টেস্ট কিট পরীক্ষার বিষয়টি এখনও প্রক্রিয়াধীন জানিয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর কনক কান্তি বড়ুয়া বলেছেন, অভিযোগের ফলে এর সাফল্য নিয়ে বিভ্রান্তি তৈরি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।তারা যদি এ রকম করে তাহলে যে টিম কাজ করছে তারা উৎসাহিত হবে না।

করোনা কিট ব্যবহারের বিষয়টি নিয়ে অভিযোগ প্রত্যাশিত নয় বলেও মন্তব্য করেন ভাইস চ্যান্সেলর।

এসএমএম

আরও পড়ুন