• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ০৯ এপ্রিল, ২০২০, ২৬ চৈত্র ১৪২৬
প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ২০, ২০২০, ০৩:২৫ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : ফেব্রুয়ারি ২০, ২০২০, ০৩:২৬ পিএম

শরীর চর্চা দেহ-মনে আনে প্রশান্তি

সবিশেষ
শরীর চর্চা দেহ-মনে আনে প্রশান্তি
শত কাজের মাঝেও ব্যায়ামকে ভুলেও অবহেলা নয় ● সংগৃহীত

 

সারা দিনের শত কর্মব্যস্ততার মাঝে নিজের জন্য সময় বার করা হয়ে ওঠে না আর। বাড়ি থেকে অফিস সবটাই— সামলাচ্ছেন একা হাতে। এমনকি, বাচ্চার দুষ্টুমি আটকাতে তার পিছনেও ছুটে চলেছেন সর্বক্ষণ। পরিশ্রম তো নেহাত কম করছেন না। তাও ওজন কেন কমছে না সেটাই ভেবে নাজেহাল। সারা দিন কাজের মধ্যেই রয়েছেন, প্রচুর খাটছেন, ফলে ওজন নিজে থেকেই কমা উচিত—এই ভ্রান্ত ধারণা থেকে সবার আগে বেরিয়ে আসা দরকার। ওজন কমাতে হলে সঠিক ডায়েট প্ল্যান আর এক্সারসাইজ ছাড়া কিন্তু অন্য কোনও পথ নেই। সমস্ত কাজ সেরে জিমে যাওয়া হয়ে ওঠে না আর। কী করে ১০ দিক সামলেও বাড়িতেই মেদ ঝরাতে পারেন, রইল সেই হদিস।

● ওজন কমানোর আগে জানতে হবে, উচ্চতা অনুযায়ী আপনার ওজন ঠিক কত হওয়া উচিত। ‘আমেরিকান কাউন্সিল অন এক্সারসাইজ- এর গাইডলাইন অনুযায়ী প্রতি মাসে ২-৩ কিলোগ্রাম ওজন কমানোর আদর্শ লক্ষ্য হওয়া উচিত। উচ্চতা অনুযায়ী আপনার ওজন ঠিক কত হওয়া উচিত সে হিসেবও খুব সহজে বার নিতে পারেন। ইঞ্চি প্রতি এক কিলোগ্রাম- এই সোজা হিয়েব মাথায় রাখলেই মিলবে সমাধান। ধরুন আপনার উচ্চতা যদি হয় ৫ ফুট অর্থাৎ ৬০ ইঞ্চি, তবে পুরুষদের ক্ষেত্রে ওজন হওয়া উচিত ৬০ কেজির আশেপাশে। নারীদের ক্ষেত্রে এর থেকে চার-পাঁচ কেজি কমিয়ে নিতে হবে।

কাজের ফাঁকে বাড়িতেই করুন শরীরচর্চা

● ওজন কমাতে হলে প্রথমেই শরীরে ক্যালরির ঘাটতি তৈরি করতে হবে। এ ক্ষেত্রে সহজ পন্থা হলো প্রতিদিনের ডায়েট থেকে ২৫০ ক্যালরি কমানো, শুধু তাই নয় একই সঙ্গে শারীরিক কসরত করে ২৫০ ক্যালরি বার্নও করতে হবে। এই উপায়ে শরীরে প্রয়োজনীয় ক্যালরির খামতি তৈরি হয়, ফলে ওজন ঝরে সহজেই। এ ক্ষেত্রে ছোট ছোট টার্গেট করে এগোনোই ভাল। শরীরে একসঙ্গে অনেকখানি ক্যালরির অভাব হলে দুর্বলতা দেখা দিতে পারে। এবার প্রশ্ন উঠতেই পারে আপনার রোজকার ক্যালরির হিসাব রাখবেন কী করে? এর জন্য মোবাইলে রয়েছে বিভিন্ন অ্যাপ। রয়েছে স্মার্ট ওয়াচ, যা আপনি প্রতিদিন কত ক্যলরি খরচ করছেন সেই হিসেব রাখতে সক্ষম। ডায়েটে পরিবর্তন এনেও ক্যালরির হিসেব রাখা যায়। আগে এক কাপ ভাত খেলে এখন আধ কাপ খান, চার টুকরো মাংস খেলে সেই সংখ্যা কমিয়ে আনুন দু’টিতে।

● দিনে অন্তত আধ ঘণ্টা কিন্তু নিয়ম করে বার করতেই হবে শরীরচর্চার জন্য। হাঁটা কিন্তু ওজন কমাতে দারুণ কার্যকর। সকালে সময় না হলে সন্ধ্যায় বাড়ির নিকটবর্তী পার্কে গিয়ে জোর গতিতে আধ ঘণ্টা হেঁটে আসুন। বাড়িতে কিংবা বারান্দায় স্পট রানিং করতে পারেন। স্কিপিং অথবা জাম্পিং জ্যাকের মতো ব্যায়ামও খুব ভাল কার্ডিও এক্সারসাইজ। এতে ওজন ঝরবে দ্রুত। স্কোয়াট, ক্রাঞ্চ এই ব্যায়ামগুলো মেদ ঝরাতে বেশ উপকারি।

● তাড়াতাড়ি ওজন কমানোই লক্ষ্য হয়, তাহলে যোগব্যায়ামের চেয়ে এক্সারসাইজ় বেশি কার্যকর। তবে যোগব্যায়ামের প্রভাব দীর্ঘস্থায়ী এবং সুদূরপ্রসারী। যোগব্যায়াম কেবল শরীরকে সুস্থ রাখে তাই নয়, মনকেও ভাল রাখে। যোগাসন এবং এক্সারসাইজ দু’টিই সময় ভাগ করে নিয়ে করতে পারেন। যোগব্যায়াম বা প্রাণায়াম শুরু করলে কোনও পেশাদারের পরামর্শ নেয়াই ভাল।

▪ আনন্দবাজার অবলম্বনে সামরীন সায্ কাশফিয়া

এসএমএম