• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১২ নভেম্বর, ২০১৯, ২৮ কার্তিক ১৪২৬
প্রকাশিত: এপ্রিল ২১, ২০১৯, ০৮:১৭ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : এপ্রিল ২২, ২০১৯, ০২:১৮ এএম

পবিত্র শবে বরাত

ইবাদত-বন্দেগিতে মশগুল ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা

জাগরণ প্রতিবেদক
ইবাদত-বন্দেগিতে মশগুল ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা
ইবাদত বন্দেগিতে মশগুল মুসলমানরা -ছবি : কাশেম হারুন

 

ধর্মীয় ভাব-গাম্ভীর্য পরিবেশে ইবাদত-বন্দেগির মধ্য দিয়ে সারাদেশে পালিত হচ্ছে পবিত্র শবে বরাত। 

হিজরি সালের শাবান মাসের ১৪ তারিখ দিবাগত রাতটি মুসলিম উম্মাহ ‘শবে বরাত’ বা ‘সৌভাগ্যের রজনী’ হিসেবে পালন করে।

মুসলিম সম্প্রদায়ের জন্য এ রাতটি ‘লাইলাতুল বরাত’ হিসেবে পরিচিত।

ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা মহান আল্লাহর রহমত ও নৈকট্য লাভের আশায় নফল নামাজ, কোরআন তেলাওয়াত, ওয়াজ, মিলাদ মাহফিলের মধ্য দিয়ে রাতটি অতিবাহিত করবেন।

চিরনিদ্রায় শায়িত আপনজনদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করবেন অনেকেই কবরস্থান গিয়ে। 

রোববার (২১ এপ্রিল) মাগরিবের নামাজের পর থেকেই শবে বরাতের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়েছে।

জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে বাদ মাগরিব থেকে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে শুরু হয়েছে রাতব্যাপী কর্মসূচি।এখানে ফজরের পর আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করবেন বায়তুল মোকাররম মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম হাফেজ মাওলানা মিজানুর রহমান।

দেশের মসজিদে মসজিদেও চলছে শবে বরাতের তাৎপর্যের ওপর বয়ান। ফজরের পর আখেরি মোনাজাত অনুষ্ঠিত হবে।

মহিমান্বিত এ রজনীতে মুসলিম উম্মাহর সুখ, শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হবে।

শান্তির ধর্ম ইসলামের চেতনাকে ব্যক্তি, সমাজ ও জাতীয় জীবনের সকল স্তরে প্রতিষ্ঠা এবং পবিত্র শবে বরাতের মাহাত্ম্যে উদ্বুদ্ধ হয়ে মানব কল্যাণ ও দেশ গড়ার কাজে আত্মনিয়োগে সবার আহ্বান জানিয়ে আলাদা আলাদা বাণী দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শবে বরাত উপলক্ষে বাংলাদেশ টেলিভিশন, বাংলাদেশ বেতারসহ বেসরকারি টিভি চ্যানেল ও রেডিও ধর্মীয় বিভিন্ন অনুষ্ঠান সম্প্রচার করছে। 

শবে বরাতের পরদিন অর্থাৎ সোমবার (২২ এপ্রিল) সরকারি ছুটি। 

এইচএস/এসএমএম