• ঢাকা
  • বুধবার, ২৭ অক্টোবর, ২০২১, ১২ কার্তিক ১৪২৮
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২১, ১০:২৬ এএম
সর্বশেষ আপডেট : সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২১, ০৪:২৬ এএম

ডি ইয়ং-কোমানের লাল কার্ডের ম্যাচে বিবর্ণ বার্সা

ডি ইয়ং-কোমানের লাল কার্ডের ম্যাচে বিবর্ণ বার্সা
আলোচনার ঝড় তুলেছে মিডফিল্ডার ফ্রেংকি ডি ইয়ংয়ের পাশাপাশি কোচ রোনাল্ড কোম্যানের লাল কার্ড দেখার ঘটনা। সংগৃহীত

লিওনেল মেসি বার্সেলোনা ত্যাগ করার পর থেকে মাঠ ও মাঠের বাইরে বার্সেলোনার সময়টা মোটেও ভালো যাচ্ছে না। ক্লাবের ভালোর জন্য যে কোনো কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে ক্লাব সভাপতি হুয়ান লাপোর্তা পিছপা হবেন না- এমন বার্তা দিয়ে পরিষ্কার ইঙ্গিত দিয়েছেন পারফরম্যান্স ভালো না হলে কোচ রোনাল্ড কোম্যানের চাকরি নিয়ে টানাটানি হতে পারে। 

চ্যাম্পিয়ন্স লীগে গ্রুপ পর্বের প্রথম ম্যাচে বায়ার্ন মিউনিখের বিপক্ষে ৩-০ গোলে হারের ম্যাচে প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছিল কোম্যানের কৌশল। খেলোয়াড়দের শরীরী ভাষাও ছিল দৃষ্টিকটু। মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা হয়ে এসেছে লা লিগায় দুর্বল প্রতিপক্ষ কাদিজের বিপক্ষে গোলশূন্য ড্র করেছে কাতালান ক্লাবটি। ফলাফলের চেয়েও সবচেয়ে বেশি আলোচনার ঝড় তুলেছে মিডফিল্ডার ফ্রেংকি ডি ইয়ংয়ের পাশাপাশি কোচ রোনাল্ড কোম্যানের লাল কার্ড দেখার ঘটনা।

গত বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) রাতে প্রতিপক্ষের মাঠে সবচেয়ে বেশি সময় বল নিজেদের নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারলেও ছন্দহীন ছিলো কাতালানদের আক্রমণ।উল্টো কাদিজের দুর্দান্ত সব আক্রমণ ঠেকিয়ে দিয়ে সফরকারীদের মান রেখেছে গোলরক্ষক মার্ক আন্দ্রে টের স্টেগান। 

বিরতির পর খেলতে নেমে অবশ্য ভালো শুরু করে বার্সেলোনা। ৫০তম মিনিটে সতীর্থের ক্রস থেকে পরিস্কার সুযোগ পেয়ে শট করতে ব্যর্থ হন মেমফিস ডিপেই। ৫২তম মিনিটে অবশ্য ডি-বক্সের বাইরে থেকে বুলেট গতির এক শট নেন ডাচ এ ফরোয়ার্ড। কিন্তু কাদিস গোলরক্ষকের দুর্দান্ত সেভে গোলের দেখা পায়নি বার্সা। 

৬৫ মিনিটে আলফোন্সো এসপিনোকে ফাউল করে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড অর্থাৎ লাল কার্ড দেখে ডি ইয়ং মাঠ ছাড়ার পর আরও অসহায় হয়ে পড়ে দলটি। টিভি রিপ্লে দেখার পর যদিও বিষয়টি বিতর্কের জন্ম দিয়েছিল। কিন্তু তখন রেফারির সিদ্ধান্ত মানা ছাড়া কিছুই করার ছিল না কাতালানদের।

ডি ইয়ংকে লাল কার্ড দেখানোর পর ডাগ আউটে তখন থেকেই গজরাচ্ছিলেন কোমান। যোগ করা সময়ের একদম শেষ মুহূর্তে গিয়ে মেজাজ আর ধরে রাখতে পারেননি। তাকেও লাল কার্ড দেখতে হয়। মাঠে তখন আরেকটি বল ঢুকে পড়েছিল। সার্জিও  বুস্কেটস সে বলে লাথি মারেন। খেলা থামাতে তখন কাদিজের এক খেলোয়াড়কে কড়া ভাষায় কিছু বলেন কোম্যান। ম্যাচের নানা মুহূর্তে মাঠে কোম্যাকে অগ্নিশর্মা দেখা যায়। তাই ম্যাচের শেষ মুহূর্তে তাকে লাল কার্ড দেখতে হয়/  

ম্যাচ শেষে বার্সা কোচ রাগ ঝাড়লেন, ‘চতুর্থ রেফারিকে শুধু বলেছি, মাঠে দুটো বল। এই দেশে কিছু না বললেও বের করে দেয়া হয়। খুব শান্তভাবে রেফারিকে জিজ্ঞেস করেছি। কিন্তু কী আর করা, এটা আমার সমস্যা নয়।’

এই ড্রয়ের পর ৫ ম্যাচে ৯ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট তালিকার সাতে আছে বার্সেলোনা। বলা বাহুল্য, কাদিজের সঙ্গে পয়েন্ট ভাগাভাগির পর কোম্যানের ভবিষ্যৎ নিয়ে প্রশ্ন উঠবেই।