• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ০২ জুলাই, ২০২০, ১৮ আষাঢ় ১৪২৭
প্রকাশিত: মে ৩১, ২০২০, ০৮:০১ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মে ৩১, ২০২০, ০৮:০৮ পিএম

অন্ডকোষ ছেড়ে জিহ্বায় কামড় স্ত্রীর, অতঃপর...

কিশোরগঞ্জ সংবাদদাতা
অন্ডকোষ ছেড়ে জিহ্বায় কামড় স্ত্রীর,  অতঃপর...
সংগৃহীত ছবি

কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় পারিবারিক কলহের জেরে স্বামীর জিহ্বা কামড়ে কেটে দিয়েছে তারই স্ত্রী নূপুর। 

শনিবার (৩০ মে) রাতে উপজেলার সুখিয়া ইউনিয়নের চরপলাশ গ্রামে চাঞ্চল্যকর এ ঘটনাটি ঘটে।

আহত মামুন কিশোরগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তিনি চরপলাশ গ্রামের শামছ উদ্দিনের ছেলে। 

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত ৭-৮ মাস আগে উপজেলার চণ্ডিপাশা গ্রামের হারুন মিয়ার মেয়ে নূপুরের সামাজিকভাবে বিয়ে হয় পার্শ্ববর্তী চরপলাশ গ্রামের শামছ উদ্দিনের ছেলে মামুনের সঙ্গে। বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই তাদের মধ্যে দাম্পত্য কলহ চলছিল। এর জের ধরে শনিবার (৩০ মে) দিবাগত রাত ১২টার দিকে ঘুমন্ত স্বামী মামুন মিয়ার অন্ডকোষ চেপে ধরে স্ত্রী নূপুর। এ সময় মামুন মিয়া নিরুপায় হয়ে জিহ্বা বের করে দিলে স্ত্রী নূপুর অন্ডকোষ ছেড়ে জিহ্বায় কামড় দিয়ে অর্ধেকের বেশি কেটে ফেলে। মামুনের চিৎকারে বাড়ির লোকজন এগিয়ে এসে তাকে উদ্ধার করে কিশোরগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে। 

বিষয়টি নিশ্চিত করে সুখিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আবদুল হামিদ টিটু বলেন, যে স্ত্রী স্বামীর জিহ্বা কেটে দিতে পারে তাকে নিয়ে সংসার করা নিরাপদ নয়। তাই আইনের আশ্রয় নিতে আমি ছেলে পক্ষকে বলে দিয়েছি।

পাকুন্দিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মফিজুর রহমান বলেন, এ ব্যাপারে থানায় কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এসএমএম

আরও পড়ুন