• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন, ২০২১, ১০ আষাঢ় ১৪২৮
প্রকাশিত: মে ৬, ২০২১, ০৮:৪৭ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মে ৬, ২০২১, ০৮:৪৭ পিএম

চীনের রকেটে প্রাণহানির সম্ভবনা কতটুকু?

চীনের রকেটে প্রাণহানির সম্ভবনা কতটুকু?

সাধারণত স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণকারী রকেট পৃথিবীতে ফিরে আসার আগেই অতিরিক্ত গতির কারণে সৃষ্ট আগুণে পুড়ে ছাই হয়ে যায়। তবে চীনের ২২ টন ওজনের একটি বিধ্বস্ত রকেট আতঙ্ক ছড়াচ্ছে বিশ্বব্যাপী। রকেটের ধ্বংসাবশেষ ঘনবসতিপূর্ণ এলাকায় পড়লে ক্ষয়ক্ষতির সৃষ্টি করতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

তবে হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়য়ের জ্যোতির্বিজ্ঞানী জোনাথন ম্যাকডোয়েল বলছেন ভিন্নকথা। মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, আসলে এই রকেটের আঘাতে পৃথিবী ধ্বংসের কোন সম্ভাবনা নেই...

ম্যাকডোয়েল জানান, “আমার মনে হয় না এটা নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কোন প্রয়োজন আছে। রকেটের ধ্বংসাবশেষ পৃথিবীতে আঘাত হানলেও বড় কোন ক্ষয়ক্ষতি হয় না। তাই দুশ্চিন্তায় আপনার রাতের ঘুম হারাম হওয়ার কোন কারণ নেই।”

ম্যাকডোয়েল আরও বলেন, “প্রতি মুহূর্তে পারিপার্শ্বিক অবস্থার প্রভাবে একটি রকেটের গতিপথ পরিবর্তন হয়। আর তাই এই রকেটটি পৃথিবীর ঠিক কোন জায়গায় আঘাত করবে সেটি নির্দিষ্ট করে বলা সম্ভব নয়। আপনি যখন চিন্তা করছেন বিধ্বস্ত রকেটটি এখানে পড়বে, ততক্ষণে সেটি মহাকাশে কয়েক মাইল দূরত্ব অতিক্রম করে গেছে। প্রতিদিন এটি ১৫ বার পৃথিবীকে প্রদক্ষিণ করছে। তাই পৃথিবীর কক্ষপথে পৌঁছানোর কয়েক ঘণ্টা আগেই কেবল এর গন্তব্য নির্দিষ্ট ভাবে বলা যাবে।”

“কেউ যদি এখন আপনাকে বলে যে আগামীকাল রকেটটা আকাশ থেকে পড়বে, তাহলে সেটা সত্যিই হাস্যকর কথা। তবে এটি মাটিতে পড়ার চাইতে সাগরে পড়ার সম্ভাবনাই বেশি। প্রশান্ত মহাসাগরের কোন অংশেও এটি পড়তে পারে। এটি কোথায় পড়বে সেটা জানা যাবে শেষ মুহূর্তের কিছু সময় আগে। তবে আমি মনে করি, এই রকেট ছাড়াও আমাদের চিন্তা করার মতো অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় আছে।”

২০২২ সালের মধ্যে চীনের স্পেস স্টেশন নির্মাণ সম্পন্ন হবে। কয়েক ধাপেই এর মডিউলগুলো স্থাপনের পরিকল্পনা রয়েছে দেশটির।

মহাকাশ স্টেশন স্থাপনের উদ্দেশ্যে গত মাসে পরীক্ষামূলকভাবে একটি মডিউল পাঠায় চীন। তবে মডিউলটি পৃথিবীর কক্ষপথে স্থাপনের পর বিধ্বস্ত রকেটটের একটি অংশ ফিরে আসতে শুরু করে পৃথিবীর দিকে। 

২৮ এপ্রিল লং মার্চ ৫বি রকেটটি উৎক্ষেপণ করে চীনের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা। আগামী ৮ থেকে ১০ মে এর মধ্যে পৃথিবীতে আঘাত হানতে পারে বিধ্বস্ত রকেটটি – এমন আশঙ্কা করছেন বিজ্ঞানীরা

আরও পড়ুন