• ঢাকা
  • সোমবার, ১১ নভেম্বর, ২০১৯, ২৭ কার্তিক ১৪২৬
প্রকাশিত: এপ্রিল ৭, ২০১৯, ০৪:০২ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : এপ্রিল ৭, ২০১৯, ১১:২৭ পিএম

‘মস্তক তুলিতে দাও অনন্ত আকাশে’

জাগরণ প্রতিবেদক
‘মস্তক তুলিতে দাও অনন্ত আকাশে’
পুরো দমে এগিয়ে চলছে মঙ্গল শোভাযাত্রার প্রস্তুতি -ছবি : জাগরণ

‘মস্তক তুলিতে দাও অনন্ত আকাশে’— বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘নৈবদ্য’ কবিতার এই চরণটিকে স্লোগান ধারন এবার পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে মঙ্গল শোভাযাত্রার আয়োজন করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদ। 

আগামী ১৪ এপ্রিল পহেলা বৈশাখ। সেদিন সকালে এই স্লোগান ধারণ করে বাংলার চিরায়ত লোকজ সংস্কৃতির নানা অনুষঙ্গের প্রতীক নিয়ে ৩০তম মঙ্গল শোভাযাত্রা বের করা হবে। সব সময়ের মতো এবারও শোভাযাত্রায় স্থান পাচ্ছে বিশালকায় চারুকর্ম পুতুল, হাতি, কুমির, লক্ষ্মীপেঁচা, ঘোড়াসহ বিচিত্র মুখোশ। থাকবে লোকজ সাজ-সজ্জা, বাদ্যযন্ত্র ও নৃত্য। 

চলছে মঙ্গল শোভাযাত্রার প্রস্তুতি

২০১৭ সালে মঙ্গল শোভাযাত্রাকে জাতিসংঘের সহযোগি সংস্থা ইউনেস্কো আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি প্রদান করে।  

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা আঙিনা এখন সরব চারুকলার শিক্ষার্থীদের পদচারণায়।

রোববার (৭ এপ্রিল) দুপুরে দেখা গেলো শিক্ষার্থী-শিল্পীদের নানা ব্যস্ততা। বাঁশ-কাঠ দিয়ে তারা নানা কিছুর প্রতিকৃতির রূপ তৈরি করছিলেন।   

মঙ্গলযাত্রা উদযাপনে চারুকলার শিক্ষক ও ছাত্রদের পৃথক দুটো কমিটি রয়েছে। শিক্ষকদের কমিটির সদস্য সচিব ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর (চারুকলা) নাজির খান খোকন। তিনি জাগরণকে বলেন, মঙ্গল শোভাযাত্রা শুধু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বা ঢাকার জন্য নয়। এটি দিয়ে গোটা বাঙালি জাতির জন্য শান্তি, সুখ, সমৃদ্ধি কামনা করা হয়। এতে স্থান পায় বাঙালির ঐতিহ্য-সংস্কৃতি।  

মেট্টোরেল প্রকল্পের কাজ চলার কারণে এবার মঙ্গল শোভাযাত্রার চলার পথ পরিবর্তন হয়েছে। সহকারী প্রক্টর (চারুকলা) নাজির খান খোকন জাগরণকে বলেন, মঙ্গল শোভাযাত্রা এবার চারুকলা থেকে বের হয়ে শাহবাগ, সেখান থেকে মৎসভবন হয়ে টিএসসি ঘুরে চারুকলা আঙিনায় ফেরা হবে।  

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর (চারুকলা) নাজির খান খোকন

এবারের শোভাযাত্রায় মুখোশ ব্যবহারে ঢাকা মেট্টোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) এর একটি নির্দেশনা রয়েছে। নাজির খান খোকন বলেন, বড় বড় মুখোশ লাঠিতে গেঁথে আমরা হাতে নিয়ে উঁচু করে প্রদর্শন করি। এতে সমস্যা নেই। শুধু ঢাকার বাইরে যেসব শোভাযাত্রা হয়, সেসব শোভাযাত্রায় অংশগ্রহণকারীরা মুখোশ পরিধান করতে পারবেন না- এই নির্দেশনা আছে। কেন্দ্রীয় শোভাযাত্রায় কেউ মুখোশ পরিধান করেন না বলে জানান তিনি।  

মঙ্গল শোভাযাত্রা বাস্তবায়নে চারুকলার শিক্ষার্থীদের সমন্বয়ে গঠিত কমিটির আহ্বায়ক তন্ময় দেবনাথ। তিনি জাগরণকে বলেন, আমাদের কাজ খুব দ্রুত এগিয়ে চলছে। অন্যবারের মত এবারও সুন্দর মঙ্গল শোভাযাত্রা বাঙালি জাতির জন্য উপহারস্বরূপ দিতে পারবো।  

আরএম/এসএমএম