• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
প্রকাশিত: অক্টোবর ২, ২০১৯, ০৬:৫৮ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : অক্টোবর ২, ২০১৯, ০৬:৫৮ পিএম

বিবর্তন , যশোর ঢাকা ইউনিটের প্রযোজনা

মঞ্চে আসছে ’কৈবর্তগাথা’

জাগরণ প্রতিবেদক
মঞ্চে  আসছে  ’কৈবর্তগাথা’

নাটকের প্রেক্ষাপটে উঠে এসেছে সেই ষষ্ঠ বঙ্গাব্দের কৈবর্তদের বাঁচা মরার সংগ্রাম কৈবর্ত বিদ্রোহ।  যখন গৌড়, বঙ্গ বা বরেন্দ্রী সমৃদ্ধ জনপদ , সেই সময় কৈবর্তরাজ ভীম বরেন্দ্রীতে প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন কৈবর্ত, পুলিন্দ,নিষাদ, হালিক- জালিকদের রাজত্ব।  প্রতিষ্ঠা করেছিলেন প্রজারাজ্য। অন্ত্যজ আর তথাকথিত অচ্ছ্যুতরা উঠে এসেছিলেন একসারিতে। পরবর্তীতে প্রজাকূলহীতে জলাশয়, বৃক্ষাচ্ছাদিত পথ, সুসজ্জিত প্রাকার নির্মাণ করে ভীম হয়ে ওঠেন জন মানুষের নির্ভরতার প্রতীক।

সভ্যতার বিচারে যা অন্য রাজাদের ঈর্ষার কারন হয়ে দাঁড়ায়।তখন এই গঙ্গা, করতোয়া, আত্রাই, পূনর্ভবা, ত্রিস্রোতায় বয়ে যাওয়া বরেন্দ্রী অঞ্চলে একসময় নগরের উৎকর্ষতা প্রতিয়মান হতো সে অঞ্চলের বারাঙ্গনা পল্লীর সমৃদ্ধি দেখে। চৌষট্টিকলায় পারদর্শী বারাঙ্গনারা ছিল নগরের শোভা।  বৌদ্ধ ধর্মজাত রাজা রামপাল আশেপাশের সকল রাজন্যবর্গ এর সহায়তায় এবং বিপুল বাণিজ্যের চুক্তিতে কৈবর্তরাজ ভীমকে পরাজিত করেন এবং বরেন্দ্রী পূর্নদখল করেন। নৃশংসভাবে হত্যা করা হয় ভীম ও তার পরিবারের সবাইকে, যথাসম্ভব তার সকল অনুসারি ও আমর্ত্যবর্গকেও।
 নাটকটি রচনা করেছেন আব্দুল্লাহহেল মাহমুদ, নির্দেশনা দিয়েছেন ফয়েজ জহির। আগামী ৪ অক্টোবর,  শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির পরীক্ষণ থিয়েটার হলে নাটকটি মঞ্চস্থ হবে। নাটকটিতে অভিনয় করেছেন মনিরুল ইসলাম, দেবাশীষ ভট্টাচার্য্য, মৃন্ময় চক্রবর্তী, শেখর ব্যানার্জী, তনিমা আক্তার, সজীব বিশ্বাস, আমেনা খাতুন, এম এ মুহিত তমাল,মাহামুদা মাহা, সৈয়দ শাহিনুর রহমান, মনোজ সমাদ্দার, শাহিন খান, জেসিকা মুন্নী, পিয়াস বিশ্বাস, অনিন্দিতা তূর্ণা, শারমিন সুলতানা, সায়ন সৌভিক প্রমুখ।

আজ যখন কল্যাণকর রাষ্ট্রব্যবস্থার স্বপ্ন আমাদের মননে, সমঅধিকার আমাদের লালিত লক্ষ্য, মানুষ পেরিয়ে এসেছে দীর্ঘ সভ্যতার পথ কিন্তু এখনও ধর্ম নিয়ন্ত্রন করে রাষ্ট্র ও মানবিক অধিকার। রাজনীতি আর ধর্ম একত্রিত হয়ে একে অন্যকে দেয় প্রগাঢ় সমর্থন। তখন কি আপনার মনে জাগে তাহলে কি উন্নতি করেছি আমরা ? কৈবর্তগাথা প্রাচীন সেই সব প্রশ্নের স্ব-জিজ্ঞাসা।