• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৬

জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনা

মুজিববর্ষ
প্রকাশিত: জানুয়ারি ১৬, ২০২০, ০৭:২৯ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ১৬, ২০২০, ০৭:৪০ পিএম

বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব শুরু শুক্রবার

তুরাগপাড়ে মুসল্লিদের ঢল

জাগরণ প্রতিবেদক
তুরাগপাড়ে মুসল্লিদের ঢল

৫৫তম বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব শুরু হচ্ছে শুক্রবার (১৭ জানুয়ারি)  এরই মধ্যে তুরাগপাড়ে জড়ো হতে শুরু করেছেন তাবলীগ জামাতের অনুসারীরা।

শুক্রবার (১৭ জানুয়ারি) বাদ ফজর আম বয়ানের মধ্য দিয়ে শুরু হবে ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বের মূল আনুষ্ঠানিকতা। রোববার ( ১৯ জানুয়ারি) আখেরি মোনাজাত। এই পর্বে সাদ ভক্তরা ইজতেমায় অংশ নিচ্ছেন।

এর আগে ১৭ জানুয়ারি (রোববার) প্রচণ্ড শীত উপেক্ষা করে প্রথম পর্ব শেষ করে জুবায়েরপন্থীরা।

দ্বিতীয় পর্বের কার্যক্রম চালানোর জন্য দিল্লির মাওলানা সাদ কান্ধলভির অনুসারীদের ময়দানের দায়িত্ব বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে। 

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে ময়দানে নতুন করে ৫০০ ট্রাক বালি ফেলে উঁচু করা হয়েছে। ময়দানে ৮০০ ড্রাম ব্লিচিং পাউডার ছিটানো হয়েছে। ইজতেমা সংশ্লিষ্ট অন্যান্য কাজ প্রায় সম্পন্ন হয়েছে। গাজীপুর সিটি করপোরেশনের তত্বাবধানে ময়দান প্রস্তুতি কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে।

দ্বিতীয় পর্বের ইজতেমার সমন্বয়ক মনির হোসেন জানান, রেকর্ডসংখ্যক দেশি-বিদেশি মুসল্লি অংশ নেবেন বলে আশা করছেন তারা।

সোমবার (১৩ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের কাছে মাঠ হস্তান্তর করে প্রথম পর্বের আয়োজক কমিটি। পরে স্থানীয় প্রশাসন দ্বিতীয় পর্বের আয়োজক কমিটির অন্যতম মুরুব্বি ওয়াসেকুল ইসলামের কাছে ইজতেমা মাঠ বুঝিয়ে দেন।

প্রথম পর্বের ইজতেমা শেষ হওয়ার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ময়দান খালি করে দেয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন। এই নির্দেশ মোতাবেক প্রথম পর্বের আখেরি মোনাজাত শেষে মুসল্লিরা ২৪ ঘণ্টার আগেই ইজতেমা ময়দান ত্যাগ করেন।

মাঠ হস্তান্তরের সময় উপস্থিত ছিলেন গাজীপুর জেলা প্রশাসক এস এম তরিকুল ইসলাম, এডিএম শাহিনুর ইসলাম, সহকারী ভূমি কমিশনার গোলাম মোরশেদ খান, ডিসি ক্রাইম শরিফ উদ্দিন, ডিবির মনজুরুল আলম, প্রথম পর্ব ইজতেমার আয়োজক কমিটির অন্যতম মুরুব্বি মেজবাহ উদ্দিন, মাহফুজুর রহমান এবং গাজীপুর সিটি করপোরেশনের কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন।

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র জাহাঙ্গীর আলম জানান, প্রথম পর্ব শেষে দ্বিতীয় পর্ব অনুষ্ঠানে বিশ্ব ইজতেমা ময়দানের ময়লা-আবর্জনা পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করতে ২৯টি বর্জ্য পরিবহন গাড়ি এবং ২৫০ পরিচ্ছন্ন কর্মী ইজতেমা ময়দানে কাজ করেছে। 

এর আগে বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব ৯ জানুয়ারি (শুক্রবার) শুরু হয়ে ১২ জানুয়ারি (রোববার) আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে শেষ হয়। এতে অংশ নিয়েছিলেন দেশ-বিদেশের লাখো ধর্মপ্রাণ মুসল্লি। প্রথম পর্বের মতো এ পর্বেও তুরাগতীরের ইজতেমা ময়দানে নেমেছে মুসল্লিদের ঢল। ইজতেমায় অংশ নিতে বৃহস্পতিবার (১৬ জানুয়ারি) থেকেই মুসল্লিরা এ ময়দানে আসতে শুরু করেছেন। যার যার খিত্তায় অবস্থান নিচ্ছেন মুসল্লিরা। বিভিন্ন যানবাহনে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র সঙ্গে নিয়ে দলে দলে মুসল্লিরা অবস্থান নিচ্ছেন ময়দানে। রান্না-বান্নার জিনিসপত্র রয়েছে তাদের সঙ্গে।

দ্বিতীয় পর্বের আয়োজনে নেতৃত্বে রয়েছেন সা’দপন্থী মুরুব্বি ওয়াসেকুল ইসলাম ও শাহাবউদ্দিন নাসিম। তিন দিনের এই বিশ্ব ইজতেমায় আমল, আখলাক, দুনিয়া ও আখেরাতে সুখ-শান্তির লক্ষ্যে দিন-রাত বয়ান চলবে প্রথম পর্বের মতোই।

ইজতেমায় অংশ নিতে ট্রেন, বাস, নৌকা-লঞ্চসহ বিভিন্ন যানবাহনে হাজারো মুসল্লি ময়দানে জড়ো হতে শুরু করে দিয়েছেন। অনেকেই জামাতবদ্ধ হয়ে দলে দলে ইজতেমা ময়দানের নির্ধারিত স্থানে (খিত্তায়) প্রয়োজনীয় মালামাল ও ব্যাগ নিয়ে অবস্থান করছেন। এ পর্বেও আগের মতোই ব্যাপকসংখ্যক মুসল্লির সমাগম ঘটবে বলে আশা প্রকাশ করেছে আয়োজক কমিটি।

অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে মাঠে বিভিন্ন আইন-শৃঙ্খলাবাহিনীর বিপুল সংখ্যক সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। প্রথম পর্বের মতো ইজতেমা চলাকালীন ও আখেরি মোনাজাত শেষে সুষ্ঠুভাবে যানবাহন চলাচলে বিশেষ নিদের্শনা জারি করা হয়েছে।

এইচএম/একেএস/এসএমএম

আরও পড়ুন