• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ০৯ জুলাই, ২০২০, ২৫ আষাঢ় ১৪২৭
প্রকাশিত: জুন ১৭, ২০২০, ১১:২২ এএম
সর্বশেষ আপডেট : জুন ১৭, ২০২০, ১১:২৩ এএম

মেসি-ফাতির গোলে বার্সার জয়

ক্রীড়া ডেস্ক
মেসি-ফাতির গোলে বার্সার জয়

চূড়ার দলের বিপক্ষে তলানির দলের খেলা। হারানোর কিছু ছিল না লেগানেসের। পয়েন্টের জন্য নিজেদের উজাড় করে দিয়েও বার্সেলোনাকে ঠেকাতে পারেনি দলটি। আনসু ফাতি ও লিওনেল মেসির দুই অর্ধের দুই গোলে প্রত্যাশিত জয় তুলে নিয়েছে বার্সেলোনা।

কাম্প নউয়ে মঙ্গলবার ২-০ গোলে জিতেছে শিরোপাধারীরা। ফাতি প্রথমার্ধের শেষ দিকে স্বাগতিকদের এগিয়ে নেওয়ার পর দ্বিতীয়ার্ধে ব্যবধান বাড়ান মেসি।

দুই দলের প্রথম দেখায় পিছিয়ে পড়ার পর ঘুরে দাঁড়িয়ে ২-১ গোলে জিতেছিল বার্সেলোনা। ফিরতি দেখায়ও তিন পয়েন্ট পেতে সংগ্রাম করতে হয়েছে দলটিকে।

লিগ ফেরার পর ঘরের মাঠে নিজেদের প্রথম ম্যাচে বার্সেলোনা শুরু করে ঢিমে তালে। পাঁচ পরিবতর্ন আনা স্বাগতিকদের শুরুতে চমকে দেয় লেগানেস।

একাদশ মিনিটে বার্সেলোনার ত্রাতা নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ফেরা ক্লেমোঁ লংলে। মেসার হেড থেকে বল পেয়ে শট নেন মিগেল আনহেল গেররেরো। গোললাইন থেকে ফিরিয়ে দেন ফরাসি ডিফেন্ডার লংলে।

দুই মিনিট পর আবার সুযোগ পান গেররেরো। এবার দুরূহ কোণ থেকে তার নেওয়া শট দূরের পোস্টে লেগে ব্যর্থ হয়।

ধীরে ধীরে নিজেদের গুছিয়ে নেয় গত দুই আসরের চ্যাম্পিয়নরা। পাঁচ ডিফেন্ডার নিয়ে খেলা লেগানেসের রক্ষণে গিয়ে তেমন একটা সুবিধা করতে পারছিল না তারা।

৩০তম মিনিটে ইভান রাকিতিচের চমৎকার ক্রসে একটুর জন্য হেড লক্ষ্যে রাখতে পারেননি অঁতোয়ান গ্রিজমান। একের পর এক আক্রমণ করে যাওয়া স্বাগতিকরা জালের দেখা পায় ৪২তম মিনিটে। জুনিয়র ফিরপোর বাড়ানো বল পেয়ে জটলা থেকে গড়ানো শটে কিপারকে ফাঁকি দিয়ে ঠিকানা খুঁজে নেন ফাতি।

পরের মিনিটে সের্হিও রবের্তোর ক্রসে হেড লক্ষ্যে রাখতে পারেননি মেসি।

৬৩তম মিনিটে নেলসন সেমেদোর কাছ থেকে বল পেয়ে জালে পাঠিয়েছিলেন গ্রিজমান। ভিএআর প্রযুক্তির সহায়তা নিয়ে গোল দেননি রেফারি। মেসির কাছ থেকে বল পাওয়ার সময় একটুর জন্য অফসাইডে ছিলেন খানিক আগে বদলি নামা সেমেদো।

৬৯তম মিনিটে সফল স্পট কিকে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন মেসি। ডি-বক্সে তিনিই ফাউলের শিকার হওয়ায় পেনাল্টি পেয়েছিল বার্সেলোনা।

ক্লাব ও জাতীয় দলের হয়ে এটি মেসির ৬৯৯তম গোল। চলতি আসরে ২১তম। করিম বেনজেমার চেয়ে অনেকটা এগিয়ে থেকে গোলদাতার তালিকায় শীর্ষে আছেন বার্সেলোনা অধিনায়ক।

কাম্প নউয়ে মেসির গোল করা ও করানোর সংখ্যা দাঁড়াল ৪৯৯-এ।

৮২তম মিনিটে ব্যবধান কমানোর সুযোগ এসেছিল লেগানেসের সামনে। শট লক্ষ্যে রাখতে পারেনি গিদো কারিয়ো। যোগ করা সময়ে লেগানেস কোচকে লাল কার্ড দেখান রেফারি।

২৯ ম্যাচে ২০ জয় ও চার ড্রয়ে ৬৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে নিজেদের অবস্থান সুসংহত করেছে বার্সেলোনা। ২৮ ম্যাচে ৫৯ পয়েন্ট নিয়ে দুই নম্বরে থাকা রিয়াল মাদ্রিদ আগামী বৃহস্পতিবার ঘরের মাঠে খেলবে ভালেন্সিয়ার বিপক্ষে।