• ঢাকা
  • শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর, ২০২০, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭
প্রকাশিত: অক্টোবর ৩০, ২০২০, ০৭:২১ এএম
সর্বশেষ আপডেট : অক্টোবর ৩০, ২০২০, ০৭:২১ এএম

ইউরোপা লিগে মিলান-লেস্টার সিটির জয়রথ অব্যাহত

ক্রীড়া ডেস্ক
ইউরোপা লিগে মিলান-লেস্টার সিটির জয়রথ অব্যাহত
গোলের পর উদযাপনে মাতোয়ারা ইটালিয়ান ক্লাব এসি মিলান সতীর্থরা - ছবি : সংগৃহিত

ইউরোপা লিগের গ্রুপ পর্বের শতভাগ জয়ের রেকর্ড অক্ষুণ্ণ রাখলো ইতালিয়ান ক্লাব এসি মিলান ও সাবেক ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ চ্যাম্পিয়ন লেস্টার সিটি।

মিলানের সান সিরোতে গ্রুপ এইচের খেলায় চেক প্রজাতন্ত্রের ক্লাব স্পার্তা প্রাগের মুখোমুখি হয় এসি মিলান। সিরি আ’র পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকা স্টেফানো পিওলি’র দল চলতি মৌসুমে আছে দারুণ ফর্মে। ইউরোপের শীর্ষ ক্লাবগুলোর মধ্যে এ মৌসুমে একমাত্র মিলানই এখন পর্যন্ত কোনো ম্যাচ হারেনি। এই পরিসংখ্যানের রেশ থাকে ম্যাচের শুরু থেকেই। ইব্রা-ডিয়াজরা আক্রমণে ব্যস্ত রাখে প্রাগের ক্লাবটিকে। গোলের জন্য অপেক্ষাটা দীর্ঘ হয়নি রসোনেরিদের। ২৪ মিনিটে ইব্রার অ্যাসিস্টে কাউন্টার অ্যাটাক থেকে গোল করেন ব্রাহিম ডিয়াজ। 

মিলানে দ্বিতীয় মেয়াদে যোগ দেয়ার পর থেকেই বুড়ো হাড়ে একের পর এক ভেল্কি দেখাচ্ছেন ইব্রাহিমোভিচ। এদিনও সুযোগ এসেছিলো স্কোর শিটে নাম তোলার। ৩৬ মিনিটে পেয়েছিলেন পেনাল্টি। কিন্তু এই সুইডিশ তারকার শট পোস্টে লেগে চলে যায় বাইরে। ১ গোলের লিড নিয়ে প্রথমার্ধ্ব শেষ করে মিলান। 

চেক প্রজান্ত্রের সবচেয়ে সফল ক্লাবটি এদিন মিলানের সামনে ছিলো একেবারেই বিবর্ণ। দ্বিতীয়ার্ধ্বেও তারা খুব একটা সুবিধা করতে পারেনি। উল্টো রসোনেরিরা ছিলো গোলের জন্য ক্ষুধার্ত। ৫৭ মিনিটে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড থেকে ধারে খেলতে আসা দিয়েগো দালোর দারুণ ক্রস থেকে লিড দ্বিগুণ করেন রাফায়েল। 

ম্যাচের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় দালো গোল করিয়েই ক্ষান্ত হননি। ৬৬ মিনিটে ইসমাইল বেনেসারের ডিফেন্স চেরা পাসে আবারো কাউন্টার অ্যাটাকে মিলান। রসোনেরিদের জার্সিতে নিজের প্রথম গোলের দেখা পান ২১ বছর বয়সী দালো।

এতেই পূর্ণ ৩ পয়েন্ট নিশ্চিত হয় ইব্রাহিমোভিচের দলের। গ্রুপ এইচে ২ ম্যাচের দুটোতেই জয় তুলে নিয়ে শীর্ষে আছে ৭ বারের ইউরোপ সেরা ক্লাবটি। 

এদিকে কষ্টার্জিত জয় পেয়েছে লেস্টার সিটি। ইপিএলে আর্সেনালকে হারিয়ে বেশ উজ্জীবিত ছিলো ব্রেন্ডন রজার্সের দল। চিরচেনা ৪-১-৪-১ ফরমেশন বদলে এদিন ৩-৪-২-১ ছকে দল সাজান এই আইরিশ কোচ।

লেস্টারকে ১৬ মিনিটেই এগিয়ে দেয়ার সুযোগ পেয়েছিলেন জেমস ম্যাডিসন। তবে সে যাত্রায় এই ইংলিশ ফুটবলার সফলতা না পেলেও, তার সতীর্থ ভুল করেন নি। ১৮ মিনিটে পেনাল্টি পায় লেস্টার। চলতি মৌসুমে ইউরোপা লিগে নিজের প্রথম গোল করে দলকে এগিয়ে দেন ৩৩ বছর বয়সী এই স্ট্রাইকার। 

সাম্প্রতিক ফর্ম ভালো না হলেও, লেস্টারের সঙ্গে সমানতালে লড়েছে এথেন্স। কিছুটা চড়াও হয়ে খেললেও, গোলের দেখা পাচ্ছিলো না স্বাগতিকরা। তবে সুযোগের সদ্ব্যবহার করেছে ফক্সেস। ৩৯ মিনিটে স্বাগতিক এথেন্সের জালে আবারো বল পাঠান বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মিডফিল্ডার হামজা চৌধুরি। 

দ্বিতীয়ার্ধ্বের শুরুতেই কিছু পরিবর্তন আনেন এথেন্সের কোচ। ফল পেয়ে যান দ্রুতই। বদলি হিসেবে নামা টাঙ্কোভিচ ৪৮ মিনিটে দলের হয়ে ব্যবধান কমান। 

শেষদিকে এইকে এথেন্স চেষ্টা করে গেছে অনেক। তবে সমতা আনতে পারেনি।  ফলে ঘরের মাঠে ইউরোপিয়ান ক্লাব প্রতিযোগিতায় এ নিয়ে টানা ১৩ ম্যাচ জয়হীন থাকলো এইকে এথেন্স। আর টানা দুই জয়ে গ্রুপ জি’তে শীর্ষে জায়গা করে নিলো লেস্টার।

এসকে