• ঢাকা
  • রবিবার, ০১ আগস্ট, ২০২১, ১৬ শ্রাবণ ১৪২৮
প্রকাশিত: জুলাই ২১, ২০২১, ০৬:১৭ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জুলাই ২১, ২০২১, ১২:১৭ পিএম

টোকিও অলিম্পিক: ব্যাডমিন্টনে প্রথম বাংলাদেশি জাজ সৈকত

টোকিও অলিম্পিক: ব্যাডমিন্টনে প্রথম বাংলাদেশি জাজ সৈকত

এই প্রথম বাংলাদেশ থেকে একজন ব্যাডমিন্টন টেকনিক্যাল অফিসিয়াল হিসেবে অলিম্পিক গেমসে দায়িত্ব পালন করবেন। মো. শামীম হাসান সৈকত নামের এই কোয়ালিফাইড আম্পায়ারকে মনোনীত করেছে ব্যাডমিন্টন ওয়ার্ল্ড ফেডারেশন। ব্যাডমিন্টন ওয়ার্ল্ড ফেডারেশনের মনোনয়নে তাকে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব দিয়েছে অলিম্পিক আয়োজক কমিটি। গেমসে লাইন জাজ হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন সৈকত।

গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সৈকত টোকিওর উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করছেন। দেশ ছাড়ার আগে সৈকত বলেন, বাংলাদেশের একজন নাগরিক হিসেবে অলিম্পিকের মত বড় আসরে ব্যাডমিন্টনে জাজের দায়িত্ব পালন করা অত্যন্ত গৌরবের। এটা কেবল বাংলাদেশের ব্যাডমিন্টনের জন্যই নয়, দেশের খেলাধুলার জন্যও ভালো খবর। আমি চেষ্টা করব ভালোভাবে দায়িত্ব পালন করে বাংলাদেশের সুনাম বৃদ্ধি করতে।

সবার দোয়াও চেয়েছেন এই ব্যাডমিন্টন জাজ, ‘এ বছর দায়িত্ব পালন অনেক চ্যালেঞ্জ। কারণ, করোনার জন্য নানা ধরনের প্রতিবন্ধকতার মধ্যে আমাদেরকে দায়িত্ব পালন করতে হবে। আমি সবার দোয়া চাই, যাতে আমার ওপর যে দায়িত্ব দেয়া হবে, তা যেন সঠিকভাবে পালন করে দেশের মুখ উজ্জ্বল করতে পারি।’

সৈকতের মেন্টর ব্যাডমিন্টন ওয়ার্ল্ড ফেডারেশনের (বিডব্লিউএফ) আন্তর্জাতিক এলিট প্যানেল আম্পায়ার নাজিব ইসমাইল রাসেল বলেন, গর্বের বিষয় আমাদের দেশ থেকে একঝাক আন্তর্জাতিক মানের কোয়ালিফাইয়েড ব্যাডমিন্টন অফিসিয়াল তৈরি হয়েছে। অলিম্পিকে অফিসিয়াল দায়িত্ব পালন করার সুযোগ পাওয়া একজন টেকনিক্যাল অফিসিয়ালের আজন্ম স্বপ্ন। শামীম হাসান সৈকত এবার সুযোগ পেয়েছে টোকিও অলিম্পিকে লাইন জাজ হিসাবে দায়িত্ব পালন করার, দেশের পতাকা সর্বোচ্চ পর্যায়ে তুলে ধরার। 

তিনি আরো যোগ করেন, ‘বাংলাদেশের ব্যাডমিন্টন ইতিহাসে শামীম হাসান সৈকত প্রথম বাংলাদেশী টেকনিক্যাল অফিসিয়াল হিসাবে ব্যাডমিন্টন ওয়ার্ল্ড ফেডারেশনের মনোনীত লাইন জাজের দায়িত্ব পালন করবে। আন্তরিক অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা’। 

শামীম হাসান সৈকত ২০১৫ সাল থেকে কোয়ালিফাইড ইন্টারন্যাশনাল ব্যাডমিন্টন টেকনিক্যাল অফিসার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। ২০১৬ সালে ভারতে অনুষ্ঠিত সাউথ এশিয়ান গেমসে টেকনিক্যাল অফিসারের দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি।

২০১৯ সালে রাশিয়ার কাজানে জুনিয়ার ওয়ার্ল্ড ব্যাডমিন্টন চ্যাম্পিয়নশিপে টেকনিক্যাল অফিসার হিসেবে দায়িত্বও পালন করেছেন সৈকত। তিনি ৬ বছরে ১৫ দেশে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ব্যাডমিন্টন টুর্ণামেন্টে টেকনিক্যাল অফিশিয়াল হিসেবে এ দায়িত্ব পালন করেছেন।